করোনার এক বিকালে

কোন এক সময়ে কথা, ২০২০ সালের জুন মাসে করোনা ভাইরাসের আক্রমণে তখন সারা বিশ্বকে আতঙ্কিত ও ভীত করেছিল তবে এখনো তার আতঙ্কিত বেড়েই চলছে। সেই সময়ে এই মহামারী করোনাভাইরাস অনেক মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। তবে এখনো সেই মৃত্যুর মিছিল থামেনি।

ফলে আমাদের মানসিক প্রশান্তি ব্যাপারটা অনেকটা অনেক জরুরী ছিল। তাই তো একদিন স্থির করলাম ঘুড়ি ওড়াবো। যেই ভাবা, সেই কাজ ঘুড়ি কেনার উদ্দেশ্যে বের হলাম। তবে অনেক খোঁজাখোঁজির পরেও আশেপাশে কোন দোকানে ঘুড়ি পেলাম না।  

তবে কি এতে ঘুড়ি ওড়ানো বাদ যাবে, তাই ইউটিউবে ঘুড়ি বানানোর ভিডিও দেখে নিজেরাই কয়েকজন মিলে কাগজ কাঠি দিয়ে ঘুড়ি বানিয়ে ফেললাম। তারপরে সকলে মিলে ছাদে চলে আসলাম। আতঙ্কিত বিকালে মনে আনন্দ নিয়ে ঘুড়ি তুললাম আকাশে…….মনে এক অদ্ভুত প্রশান্তি খোঁজে পাচ্ছিলাম।

তবে অবাক হয়েছিলাম যে আমি নিজেই শুধু ঘুড়ি উড়াচ্ছিলাম না। প্রায় আশেপাশে প্রতিটি বাসার ছাদ থেকেই আমার বযসী আরো বিভিন্নজন ঘুড়ি ওড়াচ্ছিল। লাল হলুদ নীল গোলাপি রঙে ভরে উঠেছে আকাশটা। কিছু মুহূর্তের জন্য প্রায় ভুলেই গিয়েছিলাম মহামারী করোনাভাইরাস কে। যাই হোক, সেই ঘুড়ি ওড়ানো দিনগুলো ভুলার মতো না।

আমাদের প্রত্যেকের সাথে প্রত্যেকের আন্তরিকতা, ভালোবাসা,মায়া এসবের মাধ্যমেই বৃদ্ধি পায় এবং সুসম্পর্ক তৈরি হয়ে উঠে।

নিশ্চয়ই একদিন আমরা মুক্ত আকাশের নিচে হাঁটবো, প্রাণখুলে শ্বাস নেব, উপভোগ করব প্রকৃতিকে। আমাদের নিজেদের সতর্ক হওয়ার পাশাপাশি সকলকে সতর্ক থাকতে উৎসাহিত করতে হবে। কারণ প্রতিটি মানুষ যদি নিজেদের জীবনকে ভালবাসতে পারে, বুঝতে পারে, উপভোগ করতে শেখে নিজেদের জীবন। তবেই মহামারীর করোনা আক্রমণ থেকে ফিরে  আসতে পারবো ইন-শা-আল্লাহ।

মো: সাহেল চৌধুরী
এইচএসসি ব্যাচ-2020, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজ, ময়মনসিংহ।

[শিশুরাই তোলে ধরবে শিশুদের অধিকারের কথা, আপনিও লিখুন আপনার কথা। লেখার পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]]

1 Comment
  1. Shahel Chowdhury says

    #Support_us🖤🖤

Comments are closed.